Ami O Se - Latest Bangla Golpo । বাংলা ভালবাসার গল্প । Quotesinbengali.in

 এটি আমাদের Bangla Golpo সেগমেন্ট। আপনি কি এই ধরণের গল্পগুলি খুঁজছেন যেমন- bangla golpo, bangla sad story, bangla dhukhkher golpo, bangla real story, bangla koster golpo, notun bangla golpo, story in bengali তাহলে আপনি সঠিক সাইটে এসেছেন।


Read: Purush (পুরুষ)- A real fact.

নিজের মাতৃভাষা বাংলায় যদি আপনি ভালো ভালো Bangla Golpo পড়তে চান তাহলে আমাদের এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে থাকুন। আমাদের এই ওয়েবসাইটে আমরা ভবিষ্যতে আরও বাংলা কবিতা বিভিন্ন লেখা এবং নানা ধরনের অন্যান্য বাংলায় কোয়েটস গুলি আলোচনা করব।

এই ওয়েবসাইটে আপনি যাতে বাংলা ভাষায় ভালো ভালো কোয়েটস, স্ট্যাটাস, গল্প-কবিতা যাতে পান সেটি আমাদের প্রচেষ্টা। চাইলে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন, এর জন্য আপনাকে মেইল এড্রেসে যোগাযোগ করতে হবে। আজকে আমরা একটি ভালবাসার গল্প নিয়ে আলোচনা করব তাহলে শুরু করা যাক।

Read: Valobashi (ভালোবাসি)- একটি বাংলা ভালোবাসার গল্প


এখানে আমরা বিভিন্ন ধরনের বাংলা গল্প শেয়ার করব। আমরা বাঙালিরা প্রায় সবাই গল্প পড়তে পছন্দ করি। ব্যোমকেশ রহস্য-রোমাঞ্চ থেকে শুরু করে ভালবাসার গল্প দুঃখের গল্প সব রকম গল্প আমরা পড়তে পছন্দ করি। তাই ওয়েবসাইটে আমরা আপনাদের কাছে নানা ধরনের Golpo এর সম্ভার তুলে ধরবো আর সব গুলি হবে বাংলায়।

নিজের মাতৃভাষা বাংলায় যদি আপনি ভালো ভালো Bangla Golpo পড়তে চান তাহলে আমাদের এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে থাকুন। আমাদের এই ওয়েবসাইটে আমরা ভবিষ্যতে আরও বাংলা কবিতা বিভিন্ন লেখা এবং নানা ধরনের অন্যান্য বাংলায় কোয়েটস গুলি আলোচনা করব।

এই ওয়েবসাইটে আপনি যাতে বাংলা ভাষায় ভালো ভালো কোয়েটস, স্ট্যাটাস, গল্প-কবিতা যাতে পান সেটি আমাদের প্রচেষ্টা। চাইলে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন, এর জন্য আপনাকে মেইল এড্রেসে যোগাযোগ করতে হবে। আজকে আমরা একটি ভালবাসার গল্প নিয়ে আলোচনা করব তাহলে শুরু করা যাক।


Ami O Se - Latest Bengali Story । বাংলা ভালবাসার গল্প । Quotesinbengali.in

আজকের গল্প- আমি ও সে

-'২৫ বছরে একটাও প্রেম করতে পারেন নি?'

তাচ্ছিল্যের সুরে কথাটা বলে, অবিশ্বাসের ভঙ্গিতে আমার দিকে তাকাল মেয়েটা।

যেন প্রেম করতে না পারাটা একটা অপরাধ। এবং সেই অপরাধে আমার জেল জরিমানা হওয়ার কথা। কেন যে হয়নি সেটাই ভেবে পাচ্ছে না সে। 

এদিকে আমি খুব লজ্জিত ভঙ্গিতে তার সামনে বসে আছি। এত লজ্জা যে মেয়েটার দিকে ঠিকমত তাকাতেও পারছি না। আমার মনে পড়ছে, স্কুলে থাকতে বেশ কয়েকবার পড়া না পারার কারণে স্যারের সামনে এভাবে দাড়াতে হত। 

আমার নিরবতা দেখে সে আবার বলল...

-২৫ বছরে যে একটাও প্রেম করতে পারেননি, তাহলে এখন আমাকে কিসের গল্প শোনাবেন বলুনতো? এত বড় রাত কাটবে কিভাবে, শুনি?


আমার লজ্জা সমানুপাতিক হারে আরো বেড়ে গেল। এই মূহুর্তে মনে হচ্ছে, সত্যি সত্যিই প্রেম করতে না পারাটা একটা অপরাধ। এবং আমি এতদিন এই অপরাধটা করে এসেছি। আমার কম পক্ষে ডজন খানেক প্রেম করা উচিত ছিল। অন্তত পক্ষে বাসর রাতে বউকে গর্বে বুক ফুলিয়ে বলার জন্য হলেও প্রেম করা দরকার ছিল।

আমি কাচুমাচু করে তার সামনে বসে আছি। আজকে আমাদের বাসর রাত। বাসর রাতে এরকম পরিস্থিতিতে পড়তে হবে জানা ছিল না। কত কি ভেবে রেখেছিলাম। এখন মনে হচ্ছে এই মেয়ের সামনে থেকে সড়তে পারলেই বাচি...

এমন সময়ে সে কোথা হতে যেন সিগারেট বের করে বলল...

-নিন খান, টেনশন দূর হবে। প্রেম করতে পারেন নাই, সমস্যা নাই। আপনাকে দেখেই বোঝা যায় আপনি কখনো প্রেম করতে পারবেন না। মেয়েরা আপনার মত ভ্যাবলাকান্তের প্রেমে পড়ে না। অবশ্য আমার জন্য ভালোই হয়েছে, আপনার মত ছেলেরা স্বামী হিসেবে ভালো হয়! স্ত্রীর বশে থাকে...

আমি বারদুয়েক ঢোক গিলে বললাম...

-আমি সিগারেট খাই না।

সে আবারো অবিশ্বাসের দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকাল। তারপরে নিজের সিগারেট ধরাতে ধরাতে বলল...

-বাহ! ভালো, বেশ ভালো... চা বানাতে পারেন?

আমি অবাক হয়ে তার দিকে তাকিয়ে আছি। এখনকার মেয়েরাও সিগারেট খায়, এটা শুনেছিলাম। আজ চাক্ষুষ দেখছি। গলা পরিষ্কার করার ভান করে হালকা কেশে বললাম...

-হ্যাঁ পারি...

-দুই কাপ চা বানিয়ে নিয়ে আসুন। আমার চায়ের তৃষ্ণা পেয়েছে।

সে এখনই আমাকে বশে আনতে শুরু করেছে। শুরুর শুরুটা হল চা বানানোর অর্ডার দিয়ে! ভবিষ্যতে যে আরো কত কি করতে হবে?... যাই হোক আমি যেন হাফ ছেড়ে বাচলাম। এই মেয়ের সামনে আর কিছুক্ষণ থাকতে হলে নির্ঘাত দম বন্ধ হয়ে মারা যেতাম। কি মেয়েরে বাবা! শেষ পর্যন্ত এমন একটা মেয়েই কপালে জুটতে হলো?

-

মেয়েটার নাম মনিষা, মনিষা । পারিবারিকভাবে দেখাশুনার মাধ্যোমে আমাদের বিয়ে। মেয়ের বাবা আমার বাবার পূর্ব পরিচিত। তাদের ভিতরে ঠিক বন্ধুত্ব ছিল না, তবে ভালো একটা সম্পর্ক ছিল। বাবার হঠাৎ বোধদয় হল যে পুত্রের বিয়ের বয়স হয়েছে, তাকে বিয়ে দিয়ে ঝামেলা চুকিয়ে ফেলাই উত্তম। এবং এর জন্য এই মেয়ের থেকে ভালো কাউকে তিনি আমার গলায় ঝুলানোর জন্য খুজে বের করতে পারেননি। তারই ফলশ্রুতিতে কথাবার্তা হওয়ার অল্প কিছুদিনের ভিতরেই আমাদের বিয়ে হয়। মেয়েটা অনেক চঞ্চল এটা জানতাম।কিন্তু ঠিক এতটা জানতাম না...

.

চায়ের কাপ নিয়ে গিয়ে তার সামনে দাড়িয়ে আছি। তার সিগারেট ফুকানো প্রায় শেষের দিকে। আমাকে দেখে চায়ের একটা কাপ হাতে নিতে নিতে সে বলল...

-এক কাপ চা, সাথে একটা সিগারেট! বিন্দাস জীবন... 'life is full of joy!'

আমি মেয়েটার দিকে তাকিয়ে আছি। কত আয়েশি ভঙ্গিতে সিগারেট খাচ্ছে। এত সুন্দর করে অনেক ছেলেরাও সিগারেট খেতে পারেনা। তাকে দেখে আমার এক চাচার কথা মনে পড়ে গেল। সেই চাচা একবার তার ছেলেকে বিড়ি খাওয়ার সময়ে হাতেনাতে ধরে এই বলে শাষণ করেছিলেন যে, 'অন্যের ছেলেরা কত সুন্দর করে বিড়ি খায়! চেয়ে চেয়ে দেখতে ইচ্ছে করে। আর তুই কি বিচ্ছিরিভাবে বিড়ি খাচ্ছিস! যেন ইটের ভাটা দিয়ে বসেছিস!'

আমার চুপ করে থাকা দেখে সে আবার বলল,

-আচ্ছা, আপনি গান করতে পারেন?

-না...

-কি পারেন শুনি?

তার প্রশ্নের কোন জবাব আমি দিতে পারছি না। কি পারি? ঠিক কি পারি আমি? এইমূহুর্তে নিজেই এক ঘোরের ভিতরে আছি। আমার সাথে কি হচ্ছে কিছুই বুঝতে পারছি না। মনে হচ্ছে একটা দুঃস্বপ্ন দেখছি। ঘুমটা ভেঙ্গে গেলেই দুঃস্বপ্নটা শেষ হবে!


আমার নীরবতা দেখে সে বলল...

-সারাজীবন কি করেছেন শুনি? টিনের চালের ঘর! একটা ছাদওয়ালা ঘর দিতে পারেন নাই? তাহলে ছাদে গিয়ে বসা যেত...

বলেই মনিষা মুখ টিপে হাসতে লাগল। আমাকে লজ্জা দিয়ে সে বিশেষ আনন্দ পাচ্ছে বলেই আমার মনে হচ্ছে। এমন একটা পরিস্থিতি আমার বলার কিছুই নেই...

-আচ্ছা, আমি কয়টা প্রেম করেছি সেইসব গল্প বলব, আপনি বসুন...


আমাকে বসতে বলে সে বিছানা থেকে নামল। তারপরে তার লাগেজের কাছে গিয়ে কিছু একটা বের করল। জল জাতীয় কিছু একটা দুটো গ্লাসে ঢেলে এগিয়ে নিয়ে এসে বলল...

-নিন খান...

-কি এটা?

- ওয়াইন! বুঝেন? মদ, বিয়ার বা নেশাজাতীয় পানীয়! একেবারে অরিজিনাল। আমার বান্ধবিকে দিয়ে বিদেশ থেকে আনানো। এটা না খেলে তো কিছুই করতে পারবেন না! আজকের রাতটাই বৃথা যাবে। আজকের জন্য সব মাফ, বুঝেছেন?


আমি কিছুই বুঝলাম না। তবুও বোঝার ভান করে মাথা ঝাকালাম। আমাদের স্কুলে একরামুল নামে এক অংকের স্যার ছিলেন। তিনি প্রতিটা অংক শুরুতে, শেষে, মাঝে বারেবারে বলত, বুঝেছ, বুঝেছ, বুঝেছ...

ছাত্র-ছাত্রীদের বেশিরভাগই কিছু বুঝত না। তবুও মাথা ঝাকাত, বুঝেছি...

আমার এখন সেই পরিস্থিতি। কিছু না বুঝলেও মাথা ঝাকাতে হবে। 


প্রথমে খাওয়ার পরে একটু মাথা ঝিম ধরল। নেশার মত লাগল। আরেক গ্লাস নিলাম কিনা মনে নেই...

আমি দেখতে পারছি...

মনিষা আমার দিকে ঝুকে এসে বলছে...

-বাসর রাতে স্তীর কপালে চুমু খেতে হয়! সেটাও জানেন না বুঝি? নিন, একটা চুমু খান...

মনিষা ক্রমেই আমার দিকে ঝুকে আসছে। ওর বুক থেকে শাড়ির আচল পড়ে গিয়েছে। সেদিকে তার ভ্রুক্ষেপ নেই। আমি মাথাটা দুবার এদিক ওদিক ঝাকিয়ে নিলাম। নেশার ঘোরে কি সব আবোল-তাবোল দেখছি!....

সকালে ঘুম ভাঙ্গল, চোখে মনিষার ভেজা চুলের জলের ছিটা পড়ায়। সে আমার দিকে তাকিয়ে মুছকি মুছকি হাসছে। টেবিলে একটা চায়ের কাপ থেকে গরম ধোয়া উড়ছে। গতকাল রাতের মেয়েটির সাথে এই মেয়ের কোন মিল নেই! সে লজ্জাবতী, শান্ত,, ধীর। আমি অবাক নয়নে তার দিকে তাকিয়ে আছি...।

।।সমাপ্ত।।

_____ ✍️Ovronil Adi

উপসংহার-

আশা করছি আপনাদের Golpo(গল্প) সেগমেন্ট টি ভালো লেগেছে। কেমন লাগলো আজকের লেখাটি।


যদি লেখাটি ভালো লেগে থাকে তবে আপনার মতামত নিচে কমেন্ট বক্সে জানান  এবং যদি ভালো লেগে থাকে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল। আর এরকমই আরও লেখা পেতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করতে থাকুন । আপনার নিজের গল্প/লেখা/কবিতা এখানে পোস্ট করতে আমাদের মেইল করুন quotesinbengali@gmail.com ঠিকানায় অথবা এখানে ক্লিক করুন  ।

Also Read:

Post a Comment

If you have any doubts please let me know.

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো