Khudha - A Bengali Sad Story.

এটি আমাদের Bangla Golpo সেগমেন্ট। আপনি কি এই ধরণের গল্পগুলি খুঁজছেন যেমন- bangla golpo, bangla sad story, bangla dhukhkher golpo, bangla real story, bangla koster golpo, notun bangla golpo, story in bengali তাহলে আপনি সঠিক সাইটে এসেছেন।

এখানে আমরা বিভিন্ন ধরনের বাংলা গল্প শেয়ার করব। আমরা বাঙালিরা প্রায় সবাই গল্প পড়তে পছন্দ করি। ব্যোমকেশ রহস্য-রোমাঞ্চ থেকে শুরু করে ভালবাসার গল্প দুঃখের গল্প সব রকম গল্প আমরা পড়তে পছন্দ করি। তাই ওয়েবসাইটে আমরা আপনাদের কাছে নানা ধরনের Golpo এর সম্ভার তুলে ধরবো আর সব গুলি হবে বাংলায়।
আজকে যে গল্পটি আমরা আলোচনা করব সেটি একটি দুঃখের গল্প। ক্ষুধার কারণে মানুষের পরিণতি কতো কষ্টকর হতে পারে তা নিয়েই এই গল্প।


নিজের মাতৃভাষা বাংলায় যদি আপনি ভালো ভালো Bangla Golpo পড়তে চান তাহলে আমাদের এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে থাকুন। আমাদের এই ওয়েবসাইটে আমরা ভবিষ্যতে আরও বাংলা কবিতা বিভিন্ন লেখা এবং নানা ধরনের অন্যান্য বাংলায় কোয়েটস গুলি আলোচনা করব।

এই ওয়েবসাইটে আপনি যাতে বাংলা ভাষায় ভালো ভালো কোয়েটস, স্ট্যাটাস, গল্প-কবিতা যাতে পান সেটি আমাদের প্রচেষ্টা। চাইলে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন, এর জন্য আপনাকে মেইল এড্রেসে যোগাযোগ করতে হবে। আজকে আমরা একটি ভালবাসার গল্প নিয়ে আলোচনা করব তাহলে শুরু করা যাক।


আজকে আমাদের গল্পের নাম হল ক্ষুধা

Khuda - A Bengali Sad Story.

Bangla Golpo- Khudha

ওরা সবাই এখন মারা গেছে, আমাদের বাড়ির পাশের গলিতে একটা ছোট্ট বস্তি ছিল, দুই ভাই বোন ওখানেই থাকতো মায়ের সাথে, ওদের বাবা নতুন বিয়ে করে অন্য শহরে থাকে....

ওই গলির মধ্যে দিয়ে গেলেই ভাই বোন দুটোকে খেলতে দেখতাম রাস্তায় ধুলোবালি মেখে, ওদের মা সেই ভোরের বেলায় রান্নার কাজে বেরোতো, সন্ধেয় বাড়ি ফিরতো....

ওদের মা ভোরের সময় রান্না করে ঢেকে রেখে যেতো, দুপুর গড়াতে গড়াতে ভাত ঠান্ডা হয়ে যেতো, ঠান্ডা ভাত কাঁচা লঙ্কা, আলু সেদ্ধ মেখে দুই ভাই বোনে খেতো। মা বাড়ি ফিরলে, রাতের খাবার এক থালাতে তিনজনে মিলে একসঙ্গে খেতো....

গ্রীষ্মকালে রাস্তার পাশের কলের ঠান্ডা জলে দুই ভাইবোন স্নান করতো, ভাইকে সাবান মাখিয়ে মাথায় তেল দিয়ে খুব যত্ন করে স্নান করিয়ে দিতো দিদি, ভালোই দিন কাটছিল ওদের....

দুই হাজার কুড়ি (২০২০) সালের ঘটনা বলছি, "করোনা" নামক এক ভাইরাস গোটা পৃথিবীকে গিলে ফেললো, সরকার নির্দেশ দিলো কোনো মানুষ যেন ঘরের বাইরে না বেরোয়.....

মাসের পর মাস হাসপাতাল, দোকান, বাজার, কাজ কর্ম সব বন্ধ হয়ে পড়ে রইলো। গলির ভেতরের বস্তিতে পাড়ার ছেলেরা কদিন খাবারদাবার দিয়েছিল, তারপর ওরাও হাত তুলে নিলো...

মা সন্তানদের মুখে দুবেলা খাবার তুলে দিতে পারছিলো না, বুকের ভেতরটা ছিঁড়ে যাচ্ছিল। ছোট ছেলেটা কান্নাকাটি করতো রোজ দুপুরে, ওর মা থাকতে না পেরে দুমাদুম পিটিয়ে দিতো, রেশনের চাল পেতো ওরা, কিন্তু সে চালে পোকা, ভাত করলে গন্ধ বেরোয়....

একদিন ওদের মায়ের খুব জ্বর হলো, লোকে ভাবলো "করোনা" হয়েছে, কেউ আর কাছে ঘেঁষলো না, বড় মেয়েটা ছোট ভাইটাকে ঘরে রেখে লোকের বাড়ি বাড়ি সাহায্য চাইতে গিয়েছিল,

"মায়ের খুব জ্বর, বমি করছে, একটু হাসপাতালে নিয়ে চলো না আমার মাকে, নইলে আমার মা টা মরে যাবে। আমাদের মা ছাড়া আর কেউ নেই".....

কেউ দরজা খোলেনি করোনার ভয়ে, তিনদিন জ্বরে শুয়ে থেকে ওদের মা মরে গেলো, মাকে পোড়ানোর মতো টাকাপয়সা ছিলো না ঘরে, পুরসভা থেকে লোক এসে মায়ের দেহ নিয়ে চলে গেল। ওদের মা বড় মেয়েটাকে মাঝেমধ্যে রাতের বেলায় বুকে জড়িয়ে একটা কথা বলতো,

"বিনি শোন, আমি যখন মারা যাবো, আমায় সাজিয়ে দিবি!আলতা পরিয়ে, কপালে সিঁদুরের টিপ দিয়ে, হাতে লাল চুড়ি পরিয়ে আমায় সাজাবি। বিনি ওর মাকে আর একটু জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি করতো".....

বিনির মাকে যখন পুরসভার গাড়ি এসে নিয়ে যাচ্ছিল, তখন বিনি ওর মাকে খুব সুন্দর করে সাজিয়ে দিয়েছিল। মুখ দেখলে মনে হচ্ছিল সদ্য বিবাহিতা কালো চুল খুলে শুয়ে আছে রজনীগন্ধার বিছানায়.....

মাকে নিয়ে যাওয়ার পর বাড়িতে রান্না বান্না বন্ধ হলো, মুড়ি চিড়ে খেয়ে শুয়ে থাকতো চুপচাপ ওরা ঘরের কোণে। বেশ একটু শীত শীত পড়েছে, একদিন রাতে বিনির ভাই খুব কান্নাকাটি করছিল ভাত খাওয়ার জন্য। হাঁড়িতে ভাত নেই, ঘরে চাল নেই, জল পর্যন্ত নেই.....

বিনি ওর ভাইকে বুকের মধ্যে টেনে একটা গল্প বলতে শুরু করলো,

 "ভাই মায়ের সাথে অনেকদিন দেখা হয়নি বল! শুনেছি মানুষ মরে গেলে স্বর্গে যায়, ওখানে অনেক খাবার পাওয়া যায়, পায়েস, দুধ, ডিম, মাছ, মিষ্টি, মাংস, অনেক অনেক খাবার। যাবি ভাই মায়ের কাছে?

 আমি ঘুমোলেই মাকে দেখতে পাই, মা আমাদের নিজের কাছে ডাকে, হাতে ভাতের থালা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। চল ভাই মায়ের কাছে চলে যাই, আমাদের সব কষ্ট কমে যাবে।"

বিনি বাথরুম থেকে ফিনাইল এনে দুটো গ্লাসের মধ্যে ঢেলে দিলো, কাঁচের গ্লাসে সাদা ফিনাইল দুধের মতো দেখতে লাগছিলো। কতদিন ওরা দুধ খায়নি!

 দুইজনে ঢকঢক করে খেয়ে নিলো, তারপর আর কোনোদিন ওরা খিদের জ্বালায় কষ্ট পায়নি......

উপসংহার-


আশা করছি আপনাদের Bangla Golpo সেগমেন্ট ই ভালো লেগেছে। কেমন লাগলো আজকের গল্পটি।

যদি গল্পটি ভালো লেগে থাকে তবে আপনার মতামত নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আর এরকমই আরো গল্প পেতে বা আপনার নিজের গল্প এখানে পোস্ট করতে আমাদের মেইল করুন quotesinbengali@gmail.com ঠিকানায়।

Also Check :

Post a Comment

If you have any doubts please let me know.

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো